সুন্দরবন ভ্রমণ প্যাকেজ

সুন্দরবন বাংলাদেশের একমাত্র আন্তর্জাতিক মানের প্রাকৃতিক পর্যটন কেন্দ্র। অন্তত একবার সুন্দরবন ভ্রমণ না করলে এই বনের বিশালত্ব ও বৈচিত্রময়তা অনুধাবন করা যাবেনা। দেশে অসংখ্য প্রতিষ্ঠান সুন্দরবন ভ্রমণ প্যাকেজ অফার করছে।  গ্রিন বেল্ট এর বিশেষত্ব হলো- গ্রিন বেল্ট মূলত কাজ করে ফ্যামিলি ট্যুর নিয়ে। নারীদের ছোটখাটো সুবিধা অসুবিধা বিবেচনায় রেখেই আমরা ট্যুর প্ল্যান করে থাকি। কর্পোরেট ফ্যামিলি ট্যুরের ক্ষেত্রেও দেশের শীর্ষস্থানীয় মাল্টিন্যাশনাল হাউজগুলো ভরসা রেখেছে আমাদের উপর।

সুন্দরবন গ্রিন বেল্ট ১

গন্তব্য : সুন্দরবন ভ্রমণ

❑ যাত্রার তারিখ :

ট্যুর ১ || ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৪
ট্যুর ২ || ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪
ট্যুর ৩ || ১ মার্চ  ২০২৪
ট্যুর ৪ || ৮ মার্চ  ২০২৪
ট্যুর ৫ || ১৫ মার্চ  ২০২৪

ভ্রমণের খরচ

⦿ ৯,৫০০ টাকা জনপ্রতি (কাপল/টুইন ক্যবিন)
⦿ ১১,০০০ জনপ্রতি (এটাচ বাথ ক্যাবিন)
⦿ ১৪,০০০ জনপ্রতি (এসি প্রিমিয়াম জাহাজ)
⦿ ১৮,০০০ জনপ্রতি (এসি VIP  জাহাজ)
❑ উল্লেখযোগ্যঃ প্রথমদিন খুলনা পৌঁছানোর পর থেকে আপনার ট্যুরের পুরো দায়িত্ব গ্রিন বেল্ট টিম এর। কেউ আমাদের মাধ্যমে বাস টিকিট করতে চাইলে, গ্রিন বেল্ট বাস টিকিট কেটে দেওয়ার ব্যাপারে সহায়তা করবে।
❑ ভ্রমণের স্থান সমুহ :
☑করমজল ☑ টাইগার পয়েন্ট ☑ কচিখালী  ☑ ডিমের চর ☑ হারবারিয়া ইকো পার্ক ☑ হারবারিয়া সেতু ☑ ক্রোকোডাইল প্রজেক্ট ☑ কটকা অভয়ারণ্য ☑ হিরন পয়েন্ট  ☑ জামতলা সি বিচ ☑ টাইগার টিলা

সুন্দরবন ভ্রমনের সম্ভাব্য বর্ণনা

প্রথম দিন সকাল ৮:০০টায় খুলনা লঞ্চ ঘাট থেকে সুন্দরবনের উদ্দ্যেশ্যে যাত্রা শুরু। যাত্রাপথে চাঁদপাই ফরেস্ট অফিস থেকে পারমিশন সংগ্রহ করে রওনা করবো হারবাড়িয়া অভয়ারণ্যের দিকে। হারবাড়িয়া ঘুরে রাতে কটকা অবস্থান। দ্বিতীয় দিন সকালে জামতলা সী-বিচ ও কটকা অভয়ারণ্য ঘুরে দেখবো। লাঞ্চ এর পর ডিমের চর হয়ে আমরা রওনা করবো কচিখালীর উদ্দেশ্যে। রাতে কচিখালীতে অবস্থান ও বারবিকিউ নাইট। তৃতীয় দিন সকালে ব্রেকফাস্ট শেষে রওনা করবো করমজলের উদ্দেশ্যে। করমজল ও ক্রোকোডাইল প্রজেক্ট ঘুরে বিকেলের মধ্যে খুলনা লঞ্চ ঘাটে চলে আসবো।

আরো বিস্তারিত কোনো কিছু জানতে চাইলে গ্রিন বেল্ট এর ইনবক্সে নক করুন।

 

Sundarban Tour Package Green Belt

গ্রিন বেল্ট সুন্দরবন ট্যুরের একটি মুহুর্ত

❑ কনফার্ম করার ডেডলাইন: আসন ফাঁকা থাকা সাপেক্ষে যাত্রার তারিখের কমপক্ষে ৫ দিন আগে পর্যন্ত বুকিং কনফার্ম করা যাবে। বুকিং মানেই কনফার্মেশন মানি জমা দিয়ে আসন নিশ্চিত করা।

❑ কনফার্ম করতে চাইলে ডেডলাইনের মধ্যে জনপ্রতি ৫০ ভাগ টাকা অগ্রিম ডিপোজিট করতে হবে।

❑ চাইল্ড পলিসি: – ০ থেকে ৩ বছরের শিশুদের জন্য ফ্রি এবং ৩+ থেকে ৬ বছরের শিশুদের পারমিশন ফি এবং ফুড কস্টিং যুক্ত হবে। সেক্ষেত্রে বাচ্চার গার্ডিয়ানের সাথে শিপে ক্যাবিন শেয়ার করতে হবে।

সুন্দরবন ভ্রমণ প‌্যাকেজে যা যা থাকছে

⦿ ক্যাবিনে থাকা।
⦿ কাপলদের জন্য কাপল/টুইন ক্যবিন ক্যাবিন।
⦿ জেনারেটরের মাধ্যমে বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হবে।
⦿ লাইফ জ্যাকেট। পর্যাপ্ত পরিমান বয়া।
⦿ অগ্নেয়াস্ত্র সহ বনবিভাগের নিরাপত্তা কর্মী।
⦿ বন বিভাগের প্রশিক্ষন প্রাপ্ত গাইড।
⦿ ফাস্ট এইড।

ট্যুর চলাকালীন খাবার: প্রথমদিন ব্রেকফাষ্ট থেকে শুরু করে আসার দিন দুপুরের খাবার পর্যন্ত সব ধরনের ব্রেকফাষ্ট, লাঞ্চ,ডিনার,স্ন্যাক্স। দিনে ৩ বেলা মূল খাবার ছাড়াও সকাল ১১টায় এবং সান্ধ্যকালীন স্ন্যাক্স থাকবে। লাঞ্চ এবং ডিনারে মাছ এবং মাংস দুটোই থাকবে।

সুন্দরবন ট্যুরে যে বিষয়গুলো বিবেচনা করতে হবে

⦿ এটি একটি রিলাক্স ট্রিপ। শুধুমাত্র উপরে উল্লেখিত স্পটগুলোতে শিপ থেকে নামার অনুমতি থাকবে বন বিভাগের। বাকিটা সময় বনের ভিতর দিয়ে শিপ চলবে।
⦿ আপনাকে কমপক্ষে ২৪ ঘন্টা মোবাইল নেটওয়ার্ক এর বাইরে থাকতে হবে।
⦿ জোয়ার ভাটার কারণে স্পটগুলোতে নামার সময়ের পরিবর্তন হতে পারে। তবে কোন স্পট মিস হবেনা।

যা সাথে নেওয়া উচিত

⦿ ন্যাশনাল আইডি কার্ড। না থাকলে যেকোনো ফটো আইডি কার্ডের ফটোকপি।
⦿ছোট টর্চ

Sundarban Tour Package গ্রিন বেল্ট

সুন্দরবন ট্যুরের একটি মুহুর্ত | জামতলী বিচ

 

❑ উল্লেখযোগ্য
⦿ আমাদের সুন্দরবন ভ্রমণ প্যাকেজ সহ কোনো ট্যুরেই কোন হিডেন চার্জ নেই।
⦿ গ্রিন বেল্টের বিভিন্ন ট্যুর শেষে ট্রাভেলারদের ফিডব্যাক জানতে ও ট্যুরের ছবি দেখতে জয়েন করতে পারেন উন্মুক্ত ট্রাভেল আড্ডার গ্রুপ Green Belt The Travelers‘এ।

❑ আমাদের অভিজ্ঞতা : ২০১৬ সালে যাত্রা শুরু করা গ্রিন বেল্ট ট্যুরিজম গত ৭ বছরে সাফল্যের সাথে পরিচালনা করেছে ১০০০ এরও বেশি ট্যুর। এর মধ্যে সুন্দরবন ভ্রমণ প্যাকেজ বাদেও সাজেক ভ্যালি, কক্সবাজার, সেইন্টমার্টিন, রাঙ্গামাটি, সিলেট, টাঙ্গুয়ার হাওর, বান্দরবান সহ অনেকগুলো ডেস্টিনেশন রয়েছে। দেশের বাইরে মূলত সিকিম, দার্জিলিং, মেঘালয়, ভূটান ও কাশ্মীর ট্যুর পরিচালনা করে গ্রিন বেল্ট। প্রাতিষ্ঠানিক ভাবে বাংলাদেশ সচিবালয়ের বিভিন্ন মাননীয় সচিব থেকে শুরু করে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন, টেকনোভিস্তা, ড্রাগ ইন্টারন্যাশনাল, কোকাকোলা (আব্দুল মোনেম লিঃ), রক্সি পেইন্ট, ডাচ বাংলা, মার্কেন্টাইল ব্যাংক, সিটি ব্যাংক, সহ ৮ টি ব্যাংকের বিভিন্ন ব্রাঞ্চ, পঙ্গু হাসপাতালের ডাক্তারগন, ঢাকা মেডিকেল, আসগর আলী মেডিক্যাল সহ বিভিন্ন মেডিকেলের ডাক্তারগণ আমাদের কর্পোরেট ট্যুর সার্ভিস নিয়েছেন। আমাদের প্রতিটি প্যাকেজ ‘ফ্যামিলি ও ফিমেইলদের’ কথা মাথায় রেখে ডিজাইন করা হয়। আপনার প্রতিষ্ঠানের কর্পোরেট ট্যুর আয়োজনের জন্য ভরসা করতে পারেন আমাদের দক্ষ টিমের উপর!

বুকিং মানি জমা দেওয়ার পদ্ধতি

১. সরাসরি অফিসে এসে বুকিং মানি জমা দেয়া যাবে।
শাহ-আলী প্লাজা, ১৪ তলা, মিরপুর ১০ নাম্বার সার্কেল।

২. বিকাশ ও ডাচ বাংলা ব্যাংকের রকেট করা যাবে।
৩. ব্যাংক ডিপোজিট করে বুকিং করা যাবে।

**যোগাযোগ :
0186 9649 817
0181 0137 002
0186 9649 817

আরো ট্যুর প্যাকেজ দেখুন