বান্দরবান হোটেল রিসোর্ট

ছবি: মোর্তুজা

বান্দরবান ভ্রমণ প্যাকেজ

বান্দরবানকে বলা যায় বাংলাদেশের প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের রাজধানী! সবুজ পাহাড়, পাহাড়ী নদী, আর মেঘ আর ঝর্ণার জীবন্ত ক্যানভাস! দেশে অসংখ্য প্রতিষ্ঠান বান্দরবান ভ্রমণ প্যাকেজ অফার করছে।  গ্রিন বেল্ট এর বিশেষত্ব হলো- গ্রিন বেল্ট মূলত কাজ করে ফ্যামিলি ট্যুর নিয়ে। নারীদের ছোটখাটো সুবিধা অসুবিধা বিবেচনায় রেখে আমরা ট্যুর ডিজাইন করে থাকি। কর্পোরেট ফ্যামিলি ট্যুরের ক্ষেত্রেও দেশের শীর্ষস্থানীয় মাল্টিন্যাশনাল হাউজগুলো ভরসা রেখেছে আমাদের উপর।

 

নীলগিরি

ছবি: নীলগিরি হ্যালিপ্যাড

গন্তব্য : বান্দরবান ভ্রমণ

❑ যাত্রার তারিখ : ৩ ডিসেম্বর, ১৫ ডিসেম্বর, ২৪ ডিসেম্বর

❑ ভ্রমণের স্থান সমুহ
⦿ নীলগিরি ⦿ নীলাচল ⦿ নীল দিগন্ত ⦿ চিম্বুক পাহাড় ⦿শৈল প্রপাত ⦿স্বর্ণ মন্দির ⦿ মেঘলা পর্যটন কেন্দ্র

❑ ভ্রমণ খরচঃ
৫৫০০/- টাকা প্রতি জন (নন-এসি বাস)
৭০০০/- টাকা প্রতি জন (এসি বাস)

❑কাপল প্যাকেজ সমূহ
নন এসি বাস + কাপল রুমঃ ১২০০০ টাকা
এসি বাস + কাপল রুমঃ ১৫০০০ টাকা

গ্রিন বেল্ট বান্দরবান ট্যুরের একটি মুহুর্ত

বান্দরবান ভ্রমণ পরিকল্পনা

প্রথমদিন রাতে রওনা দিয়ে পরদিন সকালে বান্দরবান নেমে হোটেলে চেক ইন। ফ্রেশ হয়ে কিছুটা বিশ্রাম নিয়ে ব্রেকফাস্ট। প্রথমে নতুন জিপ নিয়ে মেঘলা পর্যটন কমপ্লেক্স চলে যাবো, কমপ্লেক্স পুরোটা ঘুরে দেখবো। দুপুরে লাঞ্চের পর স্বর্ন মন্দির পরিদর্শন শেষে বিকেলে মেঘ দেখতে আর বার্ডস আই ভিউতে বান্দরবান দেখতে নীলাচল যাবো। সন্ধ্যায় ফিরে আসবো হোটেলে। সন্ধ্যার পর ব্যক্তিগত শপিং টাইম।

তৃতীয়দিন সকালে মেঘের রাজ্যে হারিয়ে যেতে আমরা চলে যাবো নীলগিরি। এরপর যাবো বান্দরবনের নতুন আকর্ষন নীল দিগন্তে। সেখান থেকে চিম্বুক পাহাড়। এবং দুপুরে লাঞ্চ শেষে শৈলপ্রপাত। সন্ধ্যায় গ্রুপ ভিত্তিক রুমে ফ্রেশ হয়ে আমরা রাতের খাবার খাবো ৮টায়। ৮ঃ৩০টায় ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা।

❑ কনফার্ম করার ডেডলাইন: যাত্রার তারিখের কমপক্ষে ৩ দিন আগে বুকিং কনফার্ম করতে হবে। কনফার্ম মানেই বুকিং মানি ডিপোজিট করে আসন নিশ্চিত করা, মৌখিক কনফার্মেশন গ্রহণযোগ্য নয়।

❑ কনফার্ম করার জন্য ডেড লাইনের মধ্যে প্রতিজন ২৫০০টাকা কনফার্মেশন মানি জমা দিতে হবে।

❑ চাইল্ড পলিসি: ০ থেকে ৩ বছরের শিশুদের জন্য ফ্রি এবং ৩+ থেকে ৬ বছরের শিশুদের জন্য আলোচনা স্বাপেক্ষে ছাড় প্রযোজ্য হবে।

❑ বাসের আসন বণ্টনের ক্ষেত্রে আগে বুকিং দিলে আগে পাবেন ভিত্তিতে সিট দেয়া হবে। বুকিংয়ের সময় আপনার সিট নাম্বার জেনে নিন।

❑ খাবার: সকালে পরোটা, ডিম, ডাল ও চা। প্রথম দিন দুপুরে চিকেন রোস্ট, ডাল, সালাদ। দ্বিতীয় দিন দুপুরে চিকেন বিরিয়ানী। প্রথম দিন রাতে গ্রিলড চিকেন, পরটা ও সফট ড্রিংস। দ্বিতীয় দিন রাতে চিকেন ঝাল ফ্রাই, ডাল ও সালাদ। খাবারের কোয়ালিটি মেন্টেইন করা হবে।

বান্দরবান ভ্রমণ প্যাকেজ এ যা থাকছে

⦿ ঢাকা – বান্দরবান – ঢাকা বাস টিকেট
⦿ প্রতিদিন ৩ বেলা খাবার
⦿ জীপ
⦿ হোটেল

 যা থাকছেনা
⦿ বাসের যাত্রা বিরতির খাবার
⦿ পর্যটন কেন্দ্র সমূহের এন্ট্রি ফি


কনফার্ম করার আগে যে বিষয়গুলো বিবেচনা করতে হবে

⦿ কাপলদের জন্য কাপল রুম থাকবে।
⦿ শেয়ার্ড রুমের ক্ষেত্রে এক রুমে ৪ জন করে থাকা। রুমে দুইটি করে বড় বেড থাকবে। অবশ্যই মেয়েদের থাকার রুম আলাদা থাকবে। সব রুমে এটাচ বাথ থাকবে।
⦿ নিরাপত্তা ও হসপিটালিটির কারনে গ্রিন বেল্টের সাথে প্রচুর নারী ট্রাভেলার ভ্রমন করেন। এবং বরাবরের মতই মেয়েদের থাকার রুম আলাদা থাকবে।

❑ উল্লেখযোগ্য
⦿কোন হিডেন চার্জ নেই।
⦿বাসের আসন বণ্টনের ক্ষেত্রে সিট আগে বুকিং দিলে আগে পাবেন ভিত্তিতে দেয়া হয়।
⦿ Green Belt এর বিভিন্ন ট্যুর শেষে ট্রাভেলারদের ফিডব্যাক জানতে ও ট্যুরের ছবি দেখতে জয়েন করতে পারেন উন্মুক্ত ট্রাভেল আড্ডার গ্রুপ Green Belt The Travelers‘এ।

 আমাদের অভিজ্ঞতা : ট্যুরিজম ব্র্যান্ড হিসেবে ২০১৬ সালে গ্রিন বেল্ট যাত্রা শুরু করে। তারপর গত ৪ বছরে গ্রিন বেল্ট সাফল্যের সাথে পরিচালনা করেছে ১০০০ এরও বেশি ট্যুর। এর মধ্যে বান্দরবান ভ্রমণ প্যাকেজ বাদেও সাজেক ভ্যালি, কক্সবাজার, সেইন্টমার্টিন, রাঙ্গামাটি, সুন্দরবন, টাঙ্গুয়ার হাওর, সিলেট সহ অনেকগুলো ডেস্টিনেশন রয়েছে। দেশের বাইরে মূলত সিকিম, দার্জিলিং, মেঘালয়, ভূটান ও কাশ্মীর ট্যুর পরিচালনা করে গ্রিন বেল্ট। প্রাতিষ্ঠানিক ভাবে বাংলাদেশ সচিবালয়ের বিভিন্ন মাননীয় সচিব থেকে শুরু করে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন, টেকনোভিস্তা, ড্রাগ ইন্টারন্যাশনাল, কোকাকোলা (আব্দুল মোনেম লিঃ), রক্সি পেইন্ট, ডাচ বাংলা, মার্কেন্টাইল ব্যাংক, সিটি ব্যাংক, সহ ১২ টি ব্যাংকের বিভিন্ন ব্রাঞ্চ, পঙ্গু হাসপাতালের ডাক্তারগন, ঢাকা মেডিকেল, আসগর আলী মেডিক্যাল সহ বিভিন্ন মেডিকেলের ডাক্তারগণ আমাদের কর্পোরেট ট্যুর সার্ভিস নিয়েছেন।

Green Belt এর বিভিন্ন ক্যাটাগরির সিলেট ট্যুর প্যাকেজ রয়েছে। ইকোনমি – স্ট্যান্ডার্ড – প্রিমিয়াম। তবে প্রত্যেকটি ট্যুর প্যাজেক ‘ফ্যামিলি ও ফিমেইলদের’ কথা মাথায় রেখে ডিজাইন করা হয়েছে। প্রত্যেক বৃহস্পতিবার আমাদের এক্সক্লুসিভ সিলেট ট্যুর বাদেও- নূন্যতম ৭ জন হলে যেকোনোদিন আমরা কাস্টমাইজ ট্যুর এরেঞ্জ করে থাকি। এছাড়া আপনার প্রতিষ্ঠানের কর্পোরেট ট্যুর আয়োজনের জন্য ভরসা করতে পারেন আমাদের দক্ষ টিমের উপর! আপনার স্বপ্নগুলো স্মৃতি হোক!

বুকিং মানি জমা দেয়ার পদ্ধতি

১. সরাসরি অফিসে এসে বুকিং মানি জমা দেয়া যাবে।
শাহ-আলী প্লাজা, ১৪তম তলা, মিরপুর ১০ গোল চত্ত্বর।

২. বিকাশ ও ডাচ বাংলা ব্যাংকের রকেট করা যাবে।
৩. ব্যাংক ডিপোজিট করে বুকিং করা যাবে।

যোগাযোগ
0186 9649 817
0188 4710 723