Bogalake Keokradong

বগালেক কেওক্রাডং ভ্রমণ

বান্দরবানকে বলা যায় বাংলাদেশের প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের রাজধানী! সবুজ পাহাড়, পাহাড়ী নদী, আর মেঘ আর ঝর্ণার জীবন্ত ক্যানভাস! প্রকৃতির এই মোহনীয় আয়োজন উপভোগ করতে গ্রিন বেল্ট টিম বগালেক কেওক্রাডং ভ্রমণে আপনাকে স্বাগত জানাচ্ছে।

গন্তব্য : বগালেক – কেওক্রাডং

❑ যাত্রার তারিখ :

ট্যুর ১ঃ ১৪ অক্টোবর ২০২১
ট্যুর ২ঃ ১৮ নভেম্বর ২০২১
ট্যুর ৩ঃ ১৫ ডিসেম্বর ২০২১

❑ ভ্রমণের স্থান সমুহ
⦿ বগালেক ⦿ কেওক্রাডং ⦿ চিংড়ি ঝর্ণা ⦿ দার্জিলিং পাড়া

❑ ভ্রমণ খরচঃ
৬৫০০/- টাকা প্রতি জন (নন-এসি বাস)
৮০০০/- টাকা প্রতি জন (এসি বাস)

বগালেক কেওক্রাডং ভ্রমণ পরিকল্পনা

বৃহস্পতিবার রাতের বাসে ঢাকা থেকে রওনা দিয়ে শুক্রবার সকালে বান্দরবান। বান্দরবানে ব্রেকফাস্ট শেষে জিপে করে চলে যাবো রুমা বাজার। সেখানে আর্মি ক্যাম্পে রিপোর্ট করে সমস্ত পক্রিয়া শেষে আবার জিপে উঠে বগালেক। দুপুরের মধ্যেই বগালেক থাকবো। এদিন সারাদিন বগালেক এর চারপাশের প্রকৃতি উপভোগ করবো। রাতে লেকের পাড়ে খোলা আকাশের নিচে হবে আড্ডা গান।

শনিবার সকালে আমরা একটু তাড়াতাড়িই ঘুম থেকে উঠবো। ব্রেকফাস্ট শেষে সকাল ৭ঃ৩০ টায় আমাদের ট্রেকিং শুরু হবে কেওক্রাডং এর উদ্দেশ্যে। যাওয়ার পথে পুরোটা সময় আমরা উপভোগ করবো পাহাড়ের নান্দনিক রূপ। পথেই পড়বে চিংড়ি ঝর্ণা। ঝর্ণায় গা ভিজিয়ে বন পাহাড়ের ঝিরিপথ, উঁচু-নিচু ট্রেইল ধরে আমরা চলে কেওক্রাডং। দুপুরের মধ্যে আমরা কেওক্রাডং থাকবো। বগালেক থেকে কেওক্রাডং যেতে আমাদের সময় লাগবে চার থেকে পাঁচ ঘন্টা। এদিন সারাদিন আমরা কেওক্রাডংয়ে কাটিয়ে দিবো। সন্ধ্যার পর পাহাড় চূড়ায় বসবে গল্প আড্ডা গানের আসর।

রবিবার সকালে কেওক্রাডং থেকে নেমে আসবো বগালেকের উদ্দেশ্যে। দার্জিলিং পাড়ায় এসে ব্রেকফাস্ট শেষে পাহাড়ি পথে আবার বগালেক। আসার পথে আমদের সময় অনেক কম লাগবে। এরপর জিপে বগালেক থেকে রুমাবাজার এসে দুপুরের খাবার খাবো। দুপুরের পর রুমা বাজার থেকে জিপ নিয়ে বান্দরবান। হাতে সময় থাকলে জিপ থামবে শৈলপ্রপাত। এরপর রাতের খাবার খেয়ে রাতের বাসে ঢাকার উদ্দেশে রওনা করবো।

❑ কনফার্ম করার ডেডলাইন: আসন ফাঁকা থাকা সাপেক্ষে যাত্রার তারিখের কমপক্ষে ৫ দিন আগে বুকিং কনফার্ম করতে হবে। কনফার্ম মানেই বুকিং মানি ডিপোজিট করে আসন নিশ্চিত করা, মৌখিক কনফার্মেশন গ্রহণযোগ্য নয়।

❑ কনফার্ম করার জন্য ডেড লাইনের মধ্যে প্রতিজন ৩০০০টাকা কনফার্মেশন মানি জমা দিতে হবে।

❑ বাসের আসন বণ্টনের ক্ষেত্রে আগে বুকিং দিলে আগে পাবেন ভিত্তিতে সিট দেয়া হবে।

বগালেক ভ্রমণ প্যাকেজ এ যা থাকছে

⦿ ঢাকা – বান্দরবান – ঢাকা বাস টিকেট
⦿ প্রতিদিন ৩ বেলা খাবার
⦿ জীপ
⦿ কটেজ

 যা থাকছেনা
⦿ বাসের যাত্রা বিরতির খাবার

কনফার্ম করার আগে যে বিষয়গুলো বিবেচনা করতে হবে

⦿ এটি একটি এন্ট্রি লেভেল ট্রেকিং টাইপ ট্যুর। বগালেক থেকে ক্রেওকারাডং যেতে সাড়ে চার ঘন্টার মত হেঁটে যেতে হবে।
⦿ প্রতিদিন তিন বেলা যে খাবার পাবেন তা সাধারণ মানের।
⦿ কটেজ সাধারন মানের। মেইল ও ফিমেইল কটেজ আলাদা। কোন কাপল রুম নেই।
⦿ আমাদের বিভিন্ন ট্যুর শেষে ট্রাভেলারদের ফিডব্যাক জানতে ও ট্যুরের ছবি দেখতে জয়েন করতে পারেন উন্মুক্ত ট্রাভেল আড্ডার গ্রুপ Green Belt The Travelers‘এ। বিস্তারিত কোনো বিষয়ে জানতে চাইলে নক দিন Green Belt – গ্রিন বেল্ট ফেসবুক পেজে।

 আমাদের অভিজ্ঞতা : ট্যুরিজম ব্র্যান্ড হিসেবে ২০১৬ সালে গ্রিন বেল্ট যাত্রা শুরু করে। তারপর গত ৫ বছরে গ্রিন বেল্ট সাফল্যের সাথে পরিচালনা করেছে ১০০০ এরও বেশি ট্যুর। এর মধ্যে বগালেক কেওক্রাডং বাদেও সাজেক ভ্যালি, কক্সবাজার, সেইন্টমার্টিন, রাঙ্গামাটি, সুন্দরবন, টাঙ্গুয়ার হাওর, সিলেট সহ অনেকগুলো ডেস্টিনেশন রয়েছে। দেশের বাইরে মূলত সিকিম, দার্জিলিং, মেঘালয়, ভূটান ও কাশ্মীর ট্যুর পরিচালনা করে গ্রিন বেল্ট। প্রাতিষ্ঠানিক ভাবে বাংলাদেশ সচিবালয়ের বিভিন্ন মাননীয় সচিব থেকে শুরু করে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন, টেকনোভিস্তা, ড্রাগ ইন্টারন্যাশনাল, কোকাকোলা (আব্দুল মোনেম লিঃ), রক্সি পেইন্ট, ডাচ বাংলা, মার্কেন্টাইল ব্যাংক, সিটি ব্যাংক, সহ ১২ টি ব্যাংকের বিভিন্ন ব্রাঞ্চ, পঙ্গু হাসপাতালের ডাক্তারগন, ঢাকা মেডিকেল, আসগর আলী মেডিক্যাল সহ বিভিন্ন মেডিকেলের ডাক্তারগণ আমাদের কর্পোরেট ট্যুর সার্ভিস নিয়েছেন।

বুকিং মানি জমা দেয়ার পদ্ধতি

১. সরাসরি অফিসে এসে বুকিং মানি জমা দেয়া যাবে।
শাহ-আলী প্লাজা, ১৪তম তলা, মিরপুর ১০ গোল চত্ত্বর।

২. বিকাশ ও ডাচ বাংলা ব্যাংকের রকেট করা যাবে।
৩. ব্যাংক ডিপোজিট করে বুকিং করা যাবে।

যোগাযোগ
0186 9649 817
0188 4710 723
0188 6363 232

আরো ট্যুর প্যাকেজ দেখুন