টাঙ্গুয়ার হাওর ট্যুর প্যাকেজ

চারদিকে থইথই পানি- বিশাল জলরাশি, এর মধ্যে ডুবে আছে অনেকগুলো গ্রাম, সেইসব গ্রামের একপাশে মেঘালয়ের পাহাড়-ঝর্ণা, এই নিয়ে টাঙ্গুয়ার হাওড়! দেশে অনেকগুলো প্রতিষ্ঠান টাঙ্গুয়ার হাওর ট্যুর প্যাকেজ অফার করছে।  গ্রিন বেল্ট এর বিশেষত্ব হলো- গ্রিন বেল্ট মূলত কাজ করে ফ্যামিলি ট্যুর নিয়ে। নারীদের সুবিধা অসুবিধা বিবেচনায় রেখেই আমরা ট্যুর ডিজাইন করে থাকি। কর্পোরেট ফ্যামিলি ট্যুরের ক্ষেত্রেও দেশের শীর্ষস্থানীয় মাল্টিন্যাশনাল হাউজগুলো ভরসা রেখেছে আমাদের উপর। দেশের সবচেয়ে নান্দনিক ও প্রিমিয়াম হাউজবোট রূপকথা – The Floating Paradise থাকছে আমাদের প্রতিটি টাঙ্গুয়ার হাওর ট্যুরে।

গন্তব্য: টাঙ্গুয়ার হাওর ভ্রমণ

❑ যাত্রার তারিখ :

এই বর্ষায় প্রতি সপ্তায় ৩টি করে টাঙ্গুয়ার হাওর ট্যুর রয়েছে।

ট্যুর ১ || শুক্র- শনি
ট্যুর ২|| রবি – সোম
ট্যুর ৩|| বুধ – বৃহস্পতি

❑ ভ্রমণের স্থান সমুহ
⦿ টাঙ্গুয়ার হাওড় ⦿নিলাদ্রী লেক (শহীদ সিরাজ লেক) ⦿বারিক্কা টিলা ⦿যাদুকাটা নদী ⦿লাকমা ছড়া ⦿শিমুল বাগান ⦿ট্যাকের ঘাট ⦿মেঘালয় পাহাড় সাইটসিং

❑ ভ্রমণ খরচ (সুনামগঞ্জ থেকে সুনামগঞ্জ)

চন্দ্রাবতী ক্লাসিক বোট 
৩৭০০ টাকা পার পার্সন। (চন্দ্রাবতী বোট)
৪২০০ টাকা পার পার্সন। (চন্দ্রাবতী বোট+হোটেল)
রূপকথা প্রিমিয়াম হাউজবোট
৫৫০০ টাকা পার পার্সন। (ট্রিপল শেয়ার কেবিন | এটাচ বেলকনি)
৬০০০ টাকা পার পার্সন। (কাপল ক্যাবিন | এটাচ বেলকনি)

৭৫০০ টাকা পার পার্সন। (কাপল ক্যাবিন | এটাচ বেলকনি | এটাচ বাথ)

শুক্র-শনিবার ব্যতীত অন্যান্য দিন জনপ্রতি ১০০০ টাকা করে ডিসকাউন্ট থাকবে।

ট্যুর প্ল্যান

১ম দিনঃ সুনামগঞ্জ পৌঁছে সেখান থেকে চন্দ্রাবতী  অথবা রূপকথা হাউজবোটে করে আমাদের টাঙ্গুয়ার হাওর যাত্রা।  প্রথমেই চলে যাবো ওয়াচ টাওয়ার। চার দিক জলমগ্ন এই টাওয়ার থেকে পাখির চোখে দেখা যায় টাঙ্গুয়ার হাওর। এখানে টলটলে পানিতে চলবে আবগাহন। এরপরের গন্তব্য সীমান্ত ঘেঁষা গ্রাম টেকের ঘাট। হাওড়ের শেষ আর ভারতের মেঘালয় পাহাড়ের শুরু এখানে। টেকের ঘাটে আমরা ঘুরে দেখবো চুনাপাথরের লেক নিলাদ্রী আর লাকমাছড়া। রাতে টেকের ঘাটে অবস্থান।

২য় দিনঃ সকাল ১০টার মধ্যে বোট নিয়ে চলে যাবো বারিক্কা টিলা, শিমুল বাগান ও পাহাড়ের কোল ঘেঁসে বয়ে চলা যাদুকাটা নদীর উদ্দেশ্যে। স্বচ্ছ-ঠান্ডা জলে গোসল শেষে সন্ধ্যার মধ্যে ফিরে আসবো আনোয়ারপুর। দুইদিনের চমৎকার ভ্রমণ এর স্মৃতি নিয়ে এদিন রাতে সুনামগঞ্জকে বিদায় জানিয়ে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা করবো।

 

নীলাদ্রী লেক

নীলাদ্রি লেক | ছবি: গ্রিন বেল্ট

টাঙ্গুয়ার হাওর ট্যুর প্যাকেজে যা যা থাকছে
⦿ রিজার্ভ হাউজবোট।
⦿ সুনামগঞ্জ টু রূপকথা ঘাট লোকাল ট্রান্সপোর্ট।
⦿ লাইফ জ্যাকেট।
⦿ প্রথমদিন সকালের খাবার থেকে শুরু করে আসার দিন বিকেলের খাবার পর্যন্ত প্রথমদিন ৪ বেলা এবং পরদিন ৩ বেলা খাবার। খাবারের ম্যানুতে প্রতিবেলায় মাছ এবং মাংস দুইটাই থাকছে।

❑ যা থাকছেনা
⦿ ঢাকা থেকে সুনামগঞ্জ আসা-যাওয়ার বাস টিকিট। কেউ চাইলে গ্রিন বেল্ট বাস টিকিট কেটে দিবে।
⦿ ফেরার দিন রাতের খাবার।
⦿ হিডেন চার্জ।

❑ কনফার্ম করার ডেডলাইন: আসন ফাঁকা থাকা সাপেক্ষে যাত্রার তারিখের কমপক্ষে ২ দিন আগে পর্যন্ত বুকিং কনফার্ম করা যাবে।

❑ কনফার্ম করার জন্য ৫০% অগ্রিম ডিপোজিট করে বুকিং কনফার্ম করতে হবে।

❑ চাইল্ড পলিসিঃ ০ থেকে ৩ বছরের শিশুদের জন্য ফ্রি এবং ৩+ থেকে ৬ বছরের শিশুদের জন্য আলোচনা স্বাপেক্ষে ছাড় প্রযোজ্য হবে।

কনফার্ম করার আগে যে ব্যাপার গুলো অবশ্যই বিবেচনা করতে হবে

⦿ টাঙ্গুয়ার হাওর একটি আপাদমস্তক একটি রিলাক্স ট্যুর।
⦿ Green Belt এর বিভিন্ন ট্যুর শেষে ট্রাভেলারদের ফিডব্যাক জানতে ও ট্যুরের ছবি দেখতে জয়েন করতে পারেন উন্মুক্ত ট্রাভেল আড্ডার গ্রুপ Green Belt The Travelers‘এ।

❑ আমাদের অভিজ্ঞতা : ২০১৬ সালে গ্রিন বেল্ট ট্যুরিজম যাত্রা শুরু করে। এরপর গত ৭ বছরে গ্রিন বেল্ট সাফল্যের সাথে পরিচালনা করেছে ১০০০ এরও বেশি ট্যুর। এর মধ্যে টাঙ্গুয়ার হাওর ট্যুর প্যাকেজ বাদেও কক্সবাজার, সেইন্টমার্টিন, রাঙ্গামাটি, সিলেট, সুন্দরবন, সাজেক, বান্দরবান সহ অনেকগুলো ডেস্টিনেশন রয়েছে। দেশের বাইরে মূলত সিকিম, দার্জিলিং, মেঘালয়, ভূটান ও কাশ্মীর ট্যুর পরিচালনা করে গ্রিন বেল্ট। প্রাতিষ্ঠানিক ভাবে বাংলাদেশ সচিবালয়ের বিভিন্ন মাননীয় সচিব থেকে শুরু করে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন, টেকনোভিস্তা, ড্রাগ ইন্টারন্যাশনাল, কোকাকোলা (আব্দুল মোনেম লিঃ), রক্সি পেইন্ট, ডাচ বাংলা, মার্কেন্টাইল ব্যাংক, সিটি ব্যাংক, সহ ৮ টি ব্যাংকের বিভিন্ন ব্রাঞ্চ, পঙ্গু হাসপাতালের ডাক্তারগন, ঢাকা মেডিকেল, আসগর আলী মেডিক্যাল সহ বিভিন্ন মেডিকেলের ডাক্তারগণ আমাদের কর্পোরেট ট্যুর সার্ভিস নিয়েছেন।

আমাদের প্রত্যেকটি ট্যুর প্যাকেজ ‘ফ্যামিলি ও ফিমেইলদের’ কথা মাথায় রেখে ডিজাইন করা হয়েছে। প্রত্যেক বৃহস্পতিবার আমাদের এক্সক্লুসিভ সাজেক ট্যুর বাদেও- নূন্যতম ৮ জন হলে যেকোনোদিন আমরা কাস্টমাইজ ট্যুর এরেঞ্জ করে থাকি। এছাড়া আপনার প্রতিষ্ঠানের কর্পোরেট ট্যুর আয়োজনের জন্য ভরসা করতে পারেন আমাদের দক্ষ টিমের উপর! আপনার স্বপ্নগুলো স্মৃতি হোক!

বুকিং মানি জমা দেওয়ার পদ্ধতি

সরাসরি অফিসে এসে বুকিং মানি জমা দেয়া যাবে।
( শাহ-আলী প্লাজা, ১৪তম তলা, মিরপুর ১০ নাম্বার গোল চত্ত্বর।)

বিকাশ ও ডাচ বাংলা ব্যাংকের রকেট করা যাবে।

ব্যাংক ডিপোজিট করে বুকিং করা যাবে।

যোগাযোগ

0188 6363 232

0181 0137 002
0186 9649 817
0184 1737 001

আরো ট্যুর প্যাকেজ দেখুন